নিশোর চাকরি হারানোর পেছনে নাঈম ইস্যু জড়িত নয়

image-33197.jpg

সৈকত ডেস্ক ঞ্চ
আলোচিত টেলিভিশন ব্যক্তিত্ব ফারহানা নিশোকে বনানীর নারী ধর্ষণ ঘটনায় জড়িত অভিযোগে গ্রেপ্তার নাঈম আশরাফের সাথে যোগাযোগ রাখার দায়ে বরখাস্ত করেনি একুশে টেলিভিশন কর্তৃপক্ষ। বরখাস্ত করার কারণ হিসেবে আর্থিক কেলেঙ্কারি উল্লেখ করে নিশোকে আরেকটি চিঠি দিয়েছে একুশে কর্তৃপক্ষ। গত দুদিন ধরে মিডিয়া পাড়ায় আলোচনার শীর্ষে একুশে টেলিভিশন থেকে ফারহানা নিশোকে অব্যাহতির খবর। তার চাকরি চলে যাওয়ার কারণ হিসেবে অনেক গুঞ্জন শোনা গেলেও নিশোকে দেয়া চিঠি থেকে জানা যায়, আর্থিক কেলেঙ্কারির কারণে চাকরি থেকে তাকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে। গত বুধবার একুশে টেলিভিশন এর প্রোগ্রাম হেড ফারহানা নিশোকে চাকরি থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়। চলতি বছরের জানুয়ারিতে তিনি টেলিভিশনটি যোগ দেন। ২০০৩ সালে এনটিভিতে সংবাদ পাঠিকা হিসেবে ক্যারিয়ারের যাত্রা শুরু করেন নিশো। এরপর বিভিন্ন সময়ে ওয়ারিদ টেলিকম, গ্রামীণফোন, এনটিভি, বৈশাখী টিভি ও যমুনা টিভিতে কাজ করেছেন তিনি। নিশোকে দেয়া চিঠিতে বলা হয়ে, ‘আপনি একুশে টেলিভিশনের অনুষ্ঠান বিভাগ প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। আপনার প্রাতিষ্ঠানিক দায়িত্ব সম্পর্কিত বিভিন্ন কর্মকাণ্ড পর্যবেক্ষণ, পর্যালোচনা এবং আত্মপক্ষ সমর্থনে আপনার প্রদত্ত বক্তব্য ও উপস্থাপিত বিভিন্ন নথিসমূহ আমলে নিয়ে প্রমাণ পাওয়া যায় , আপনি আপনার নিয়োগ পত্রের ১০ নং শর্ত ভঙ্গ করে অন্য ব্যবসা য়ের সঙ্গে জড়িত হয়েছেন এবং ব্যবস ায়িক সম্পর্ক বজায় রেখেছেন। এছাড়াও আপনি প্রতিষ্ঠানের আর্থিক নীতি ও শৃঙ্খলা ভঙ্গ করেছেন। সবশেষ কারণ হিসেবে বলা হয়, আপনি একুশে টেলি ভিশনের ব্যবসা সম্পর্কে প্রতারণা ও অসাধুতার আশ্রয় গ্রহণ করে প্রতিষ্ঠানকে আর্থিকভাবে ক্ষত্রিগ্রস্ত করেছেন। সবশেষ বলা হয়, উপরোক্ত অসদাচর ণের দায়ে আপনাকে চাকরি থেকে বরখাস্ত করা হলো। এ আদেশ অবিলম্বে কার্যকর হবে। আপনার নিকট রক্ষিত আইডি কার্ড, ভিজিটিং কার্ড, সিম, স্টি কার, গাড়ি ও অন্যান্য দ্রব্যাদি কোম্পা নির নিয়ম ও বিধি অনুসারে দায়িত্বরত কর্মকর্তার নিকট হস্তান্তর করার জন্য পরামর্শ দেয়া গেল। এসব বিষয় নিয়ে কথা বলতে ফারহানা নিশোর সঙ্গে একাধিকবার যোগাযোগ করলেও তার সঙ্গে কথা বলা সম্ভব হয়নি।

Top